সরকারি কর্মচারীদের জন্য গৃহ নির্মাণ/ফ্ল্যাট ঋণের অনলাইনে আবেদন

কারা আবেদন করতে পারবেন

১) গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের আওতাধীন মন্ত্রণালয়/ বিভাগ/অধিদপ্তর/পরিদপ্তর/কার্যালয়সমূহে শুধুমাত্র স্থায়ী পদের বিপরীতে নিয়োগপ্রাপ্ত(বেসামরিক/সামরিক) কর্মকর্তা/কর্মচারী।

২) ঋণ প্রাপ্তির সর্বোচ্চ বয়সসীমা ৫৬ বছর। 

৩) আবেদনকারীর মাসিক বেতন-ভাতা Online/EFT পদ্ধতির আওতায় আসতে হবে। 

 

কারা আবেদন করতে পারবেন না

১) রাষ্ট্রায়ত্ত্ব ও স্বায়ত্ত্বশাসিত প্রতিষ্ঠান, রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন কোম্পানীতে নিযুক্ত কর্মচারীগণ এই ঋণ সুবিধার আওতাভুক্ত হবেন না। 

২) চুক্তিভিত্তিক, খন্ডকালীন ও অস্থায়ীভিত্তিতে নিযুক্ত কোন কর্মচারী এই ঋণ পাওয়ার যোগ্য হবেন না। 

৩) কোন সরকারি কর্মচারীর বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা রজু এবং দুর্নীতি মামলার ক্ষেত্রে চার্জশিট দাখিল হলে মামলার চূড়ান্ত নিস্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত এ নীতিমালার আওতায় ঋন গ্রহণের জন্য বিবেচনা হবেন না। 

 

আবেদনকারীর জন্য দিক নির্দেশনা

১) আবেদনকারীকে জনতা ব্যাংক লিমিটেড এর ওয়েব সাইটে গিয়ে প্রাথমিকভাবে ট্র্যাকিং নম্বর সংগ্রহ করার জন্য অনলাইনে আবেদন ফরম পূরণ করতে হবে। 

২) অনলাইন আবেদন ফরম পূরণ করলে তাকে একটি অটো জেনারেটেড ট্র্যাকিং নম্বর প্রদান করা হবে যা ডাউনলোড করে প্রিন্টআউট বের করতে হবে। 

৩) অতঃপর আবেদনকারীকে জনতা ব্যাংকের ওয়েব পেইজ থেকে মূল আবেদন ফরম, ঋণের প্রাপ্যতা সংক্রান্ত প্রত্যয়ন, বেতন-ভাতা EFT এর মাধ্যমে প্রেরণ সংক্রান্ত প্রত্যয়ন ও চেকলিস্ট সংগ্রহ করতে হবে। 

৪) পরিশেষে প্রাথমিক আবেদনপত্র (ট্র্যাকিং নম্বরসহ), মূল আবেদন পত্র(যথাযথ পূরণকৃত), সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট হতে ঋণের প্রাপ্যতা সংক্রান্ত প্রত্যয়ন, বেতন-ভাতা EFT এর মাধ্যমে প্রেরণ সংক্রান্ত প্রত্যয়ন এবং চেকলিস্টে উল্লেখিত প্রয়োজনীয় সকল কাগজপত্রসহ আবেদনকারী যে শাখা বরাবর অনলাইনে আবেদন করেছেন সে শাখায় দাখিল করবেন।  

৫) জনতা ব্যাংক লিমিটেড এর যে শাখা হতে ঋণ গ্রহনে ইচ্ছুক আবেদনকারীকে  উক্ত শাখায় একটি হিসাব থাকতে হবে। উক্ত হিসাবের মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট কর্মচারীর বেতন/ভাতা/পেনশন এবং গৃহ নির্মাণ বা ফ্ল্যাট ক্রয় ঋণ বিতরণ ও আদায় সংক্রান্ত সমুদয় কার্যক্রম পরিচালিত হবে। 

 

গৃহ নির্মাণ/ফ্ল্যাট ঋণের আবেদন করার জন্য ফর্ম সমূহঃ